তা’রুণ্য ধরে রা’খতে পুরুষেরা মে’নে চলুন কিছু নিয়ম

বয়স বাড়তে থাকবে কিন্তু বয়সের ছাপ আপনার চোখে মুখে পড়বে না তা কিন্তু নয়। তবে অনেক সময় অনেককে দেখে তার বয়স বোঝার উপায় থাকে না। আজীবন তারুণ্য ধ’রে রাখতে চায় সবাই। তবে সময়ের স’ঙ্গে স’ঙ্গে ত্বকে বয়সের ছাপ পড়তে থাকে। তবুও সবার মনের সুপ্ত এক আশা তাকে দে’খতে তরুণ লাগুক।

বয়সের ছাপ লুকানোর জন্য নামিদামি পণ্য ব্যবহার করেন অনেকে। তবে ইতিরিক্ত কেমিকেলযুক্ত এসব পণ্য উল্টো কাজি বেশি করে। ত্বকের আরো নানান স’মস্যা বাড়িয়ে তোলে। তাই কেমিকেল পণ্য ছাড়ুন। মেনে চলুন কিছু নিয়ম। জীবনযাপন রুটিন মাফিক চলুন।

সুশৃঙ্খল জীবনযাত্রার পাশাপাশি স্বা’স্থ্যকর খাবার, হাঁটাচলা, ব্যায়াম, পজিটিভ চিন্তা করা, মনকে প্রফুল্ল রাখা। আর এই সব কিছুর পাশাপাশি রূপচর্চা। তবেই তারুণ্য ধ’রে রাখা সম্ভব।

> খাদ্য তালিকায় রাখু’ন রঙিন খাবার। এগুলোতে থাকা ভিটামিন সি ও কে আপনাকে রাখবে সু’স্থ ও ঝরঝরে। টমেটো, ক্যাপসিকাম, ব্রকোলিসহ বিভিন্ন শাক ও সবজি খান প্রতিদিন।

> তৈলাক্ত মাছ রাখু’ন পাতে। সপ্তাহে দুই থেকে তিন দিন তেলযুক্ত মাছ খেলে খুব সহজে বয়স ভিড়তে পারবে না কাছে।

> অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট পাওয়া যায় এমন খাবার খান। অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট ফ্রি র‍্যাডিকেলের বি’রুদ্ধে কাজ করে। ফলে ত্বকে বয়সের ছাপ প’ড়ে না সহজে। পালং শাক, কমলা, ক্যাপসিকামে পাওয়া যায় অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট।

> চিনি বাদ দিয়ে দিন খাদ্য তালিকা থেকে। অতিরি’ক্ত লবণ খাওয়ার অভ্যাস থাকলে সেটিও ত্যা’গ করুন। এগুলো খুব দ্রুত বয়সের ছাপ ফে’লে দেয় শ’রীরে।

> প্রোটিন রাখু’ন পাতে। কোষের তারুণ্য দীর্ঘদিন ধ’রে রাখতে পারে পর্যাপ্ত প্রোটিন।

> পানি বেশি আছে এমন ফল ও সবজি খান। আঙুর, তরমুজ, শসা এগুলো খেলে ত্বক থাকবে সুন্দর ও টানটান।

> মা’নসিক চা’পমু’ক্ত থাকার চেষ্টা করুন। অহেতুক দু’শ্চিন্তা দ্রুত আপনার শ’রীরে বয়সের ছাপ ফে’লে দেবে। মন খু’লে হাসার অভ্যাস করুন। হাসিখুশি থাকার এই অভ্যাস আপনার শ’রীরে বয়সের ছাপ ফেলবে না সহজে। মনও থাকবে তরুণ।

> অতিরি’ক্ত প্রসাধনী ব্যবহার করবেন না। এগুলো দ্রুত বলিরেখা ফে’লে দেয় ত্বকে। সামান্য প্রসাধনীতেই থাকুন স্বাচ্ছন্দ্য।

> সপ্তাহে চার থেকে পাঁচদিন ব্যায়াম করুন। এটি ত্বক ও শ’রীরের বুড়িয়ে যাওয়ার হার কমিয়ে দেবে। জগিং, সাঁতার বা সাইকেলিং হতে পারে চমৎকার ব্যায়াম।

> বলিরেখাহীন ত্বক ও সু’স্থ শ’রীরের জন্য পর্যাপ্ত পানি পানের বিকল্প নেই। পানি শ’রীর থেকে দূষিত উপাদান বের করে দিতে সাহায্য করে।

> ইয়োগা বা মেডিটেশন করুন নিয়মিত। ফুরফুরে থাকতে চাইলে এর বিকল্প নেই।